‘ফুটেজ দেখে দোষীদের খুঁজে বের করা হবে’

‘ফুটেজ দেখে দোষীদের খুঁজে বের করা হবে’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, পুরান ঢাকায় হোসেনি দালানে বোমা হামলার 1ভিডিও ফুটেজ দেখে দোষীদের খুঁজে বের করা হবে। আজ শনিবার দুপুরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে গিয়ে বোমা বিস্ফোরণে আহতদের খোঁজ-খবর নেয়ার সময় সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, রাতে কোনো ধরনের মিছিল না করার জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে নির্দেশনা ছিল। তার পরও রাতে মিছিল বের করা হয়। কীভাবে এই হামলা হলো ও কারা জড়িত, তা খুঁজে বের করতে তদন্ত সংস্থা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কাজ করছে। দ্রুত জড়িতদের খুঁজে বের করা হবে। আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘আমাদের নিরাপত্তার কোনো দুর্বলতা ছিল না। আমাদের যথেষ্ট নিরাপত্তা ছিল। তবে কারা, কেন, কিভাবে বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে তা খতিয়ে দেখব। আমাদের কাছে যথেষ্ট তথ্য আছে। যারা ঘটিয়েছে তারা সংঘবদ্ধ।’
এ ঘটনায় জঙ্গি সম্পৃক্ততা রয়েছে কিনা জানতে চাইলে মন্ত্রী এ বিষয়ে সরাসরি উত্তর না দিলেও বলেন, ‘আনসারুল্লাহ, হুজি, জেএমবি, আলকায়েদা, আইএস সব এক জায়গার প্রডাক্ট। আমরা কখনোই তাদের মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে দেইনি। আর কখনও দিবও না।’
ঘটনাস্থল থেকে দুটি অবিস্ফোরিত বোমা উদ্ধার করা হয়েছে। সেগুলো গ্রেনেড না বোমা এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘যেগুলো উদ্ধার হয়েছে সেগুলো গ্রেনেড বা বোমা নয়। সেগুলো দেশীয় তৈরি। তবে পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।’
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আন্তর্জাতিক ভাবমূর্তি নষ্ট করতে, দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করতে এ হামলা চালানো হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘এঘটনার সঙ্গে জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়নি। তবে বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তদন্ত করছেন। এর সঙ্গে জড়িতদের খুব শিগগির আইনের আওতায় আনা হবে।’
এর আগে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘অপরাধীদের ধরতে আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে। ঘটনাস্থল থেকে ১৬টি সিসি টিভির ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে। সেগুলো যাচাই-বাছাই করছি। একটু সময় লাগবে। আশা করছি ভাল কিছু দেখাতে পারব। সবার সামনে তা প্রকাশিত হবে।’
এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহিদুল হক, র্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গহর রিজভী, খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম প্রমুখ।
প্রসঙ্গত, পুরান ঢাকার হোসেনি দালানে তাজিয়া মিছিলের প্রস্তুতির সময় শুক্রবার গভীর রাতে বোমা হামলায় সাজ্জাদুল হক সানজু (১৮) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১০০ জনের বেশি। তাদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও মিডফোর্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

Featured বাংলাদেশ