৫মে হেফাজতের সমাবেশে গুলি ছোড়া হয়নি, কেউ মারাও যায়নি: শেখ সেলিম

৫মে হেফাজতের সমাবেশে গুলি ছোড়া হয়নি, কেউ মারাও যায়নি: শেখ সেলিম

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম দাবি করেছেন, গত ৫ মে হেফাজতে ইসলামের অবস্থান কর্মসূচিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কোনো গুলি ছোড়েনি। তিনি বিরোধী দলের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বলেন, ‘ওইদিন কোনো মানুষ মারা যায়নি। আপনারা একটি লোকের (মৃত ব্যক্তি) নাম ঠিকানা দেন। রাজনীতিই আর করব না।’
তিনি বলেন, অসাংবিধানিক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন নয়, প্রধানমন্ত্রীর অধীনেই সাংবিধানিকভাবে জাতীয় নির্বাচন হবে।

বুধবার সন্ধ্যায় জাতীয় সংসদে বাজেট আলোচনায় তিনি এ কথা বলেন।

বাজেট আলোচনায় অংশ নেন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, রাশেদ খান মেনন, রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক, এলডিপি সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ, জাতীয় পার্টির এটিআইএম ফজলে রাব্বী প্রমুখ।

শেখ ফজলুল করিম সেলিম বলেন, রাত ২টায় অভিযান চালানো হয়, সেখানে কোনো গুলি হয়নি। সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করার পর তারা চলে গেছে। একটি মানুষও মারা যায়নি। মারা গেছে এমন একটি মানুষের নাম ঠিকানা দিন। রাজনীতিকে রাজনীতি দিয়ে মোকাবেলা করতে হবে। সন্ত্রাস দিয়ে মোকাবেলা করা যায় না। তাহলে পতন অবশ্যম্ভাবী।

তিনি তত্ত্বাবধায়ক সরকার সম্পর্কে বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার অসাংবিধানিক সরকার। তারা আমাদের নির্যাতিত করেছে। কিভাবে আবার তারা নির্বাচন দিবে। সংবিধানের বাইরে কিছু হবে না। সাংবিধানিকভাবে নির্বাচন হবে। অন্যান্য দেশের মতো প্রধানমন্ত্রীর অধীনেই জাতীয় নির্বাচন হবে। কেউ অগণতান্ত্রিক কোনো কিছু করার চেষ্টা করলে তা প্রতিহত করা হবে। জনগণকে অহেতুক কেউ কষ্ট দেবেন না।

রাজনীতি শীর্ষ খবর