মন্ত্রিত্ব আর নয়: মুহিত

মন্ত্রিত্ব আর নয়: মুহিত

নির্বাচন করলেও আগামীতে মন্ত্রী হতে আর চান না আবুল মাল আবদুল মুহিত।

অর্থমন্ত্রী বুধবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, “আগামীতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলেও আমি আর মন্ত্রিত্বে নেই। আর আমার পক্ষে মন্ত্রিত্বের দায়িত্ব পালন করা সম্ভবপর নয় “

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট ক্ষমতায় আসার পর দ্বিতীয়বারের মতো দেশের অর্থমন্ত্রীর দায়িত্বে আসেন মুহিত। এর আগে এরশাদ আমলেও অর্থমন্ত্রী ছিলেন তিনি।

২০০১ সালে সিলেট সদর আসন থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হয়ে এম সাইফুর রহমানের কাছে হারতে হয়েছিল মুহিতকে। তবে ২০০৮ সালের নির্বাচনে জয়ী হন তিনি।

মন্ত্রিত্ব আর না চাইলেও সংসদ সদস্য পদে আগামীতেও নির্বাচনের ইচ্ছা রয়েছে ৭৯ বছর বয়সি মুহিতের।

“‘তবে সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চাই। আশা করি, নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিতও হব,” বলেছেন তিনি।

শেখ হাসিনা সরকারের অর্থমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর পুঁজিবাজার, পদ্মা সেতু প্রকল্প, ব্যাংক ঋণ কেলেঙ্কারি নিয়ে বেশ জটিল সময় পার করতে হচ্ছে মুহিতকে।

এই সব বিষয়ের পাশাপাশি বিভিন্ন মন্তব্যের জন্য সমালোচনায়ও পড়তে হয়েছে মুহিতকে।

পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীদের ‘ফটকাবাজ’ বলে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল তাকে। পুঁজিবাজার নিয়ে সংসদে দলীয় সংসদ সদস্যদের সমালোচনাও সইতে হয়েছে তাকে।

ড. মুহাম্মদ ইউনূসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মুহিতের ‘রাবিশ’ উক্তি নিয়েও ব্যাপক আলোচনা ওঠে।

সর্বশেষ হল-মার্ক কেলেঙ্কারিতে আড়াই হাজার কোটি টাকা ‘লুট’ ‘তেমন বড় কিছু নয়’ মন্তব্য করে সমালোচনার মুখে পড়ে ভুল স্বীকার করেন তিনি।

তবে দেশের অর্থনীতির বর্তমান হালে সন্তুষ্ট মুহিত; যদিও এর প্রচার নেই বলে হতাশা রয়েছে তার।

দেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতি নিয়ে খেদ রেয়েছে সাবেক এই আমলার। গত জানুয়ারিতে তিনি বলেছিলেন, “আমি জানি না, কীভাবে এটা বদলাবে।”

অন্যান্য অর্থ বাণিজ্য আন্তর্জাতিক বাংলাদেশ রাজনীতি শীর্ষ খবর