ফরমালিনমুক্ত বাজারে মনিটরিং জোরদার করা হবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

ফরমালিনমুক্ত বাজারে মনিটরিং জোরদার করা হবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

বাণিজ্যমন্ত্রী গোলাম মোহাম্মদ কাদের বলেছেন, ফরমালিনমুক্ত বাজার একটি শুভ উদ্যোগ । এই উদ্যোগকে কাযর্কর করতে ফরমালিনমুক্ত ঘোষিত বাজারগুলোতে মনিটরিং জোরদার করা হবে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, ব্যবসায়ী ও নেতৃবৃন্দের মাধ্যমে সরকারি কর্মকর্তারা এসব বাজার মনিটরিং করবেন।

শুক্রবার রাজধানীর অভিজাত এলাকা গুলশান-২ গোল চত্বরের পাশে নির্মিত মঞ্চে এ‍ই  বাজারকে ফরমালিনমুক্ত ঘোষণা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

গুলশান বাজারকে ফরমালিনমুক্ত করার উদ্যোগ বাস্তবায়নের জন্য এক্সিম ব্যাংক লিমিটেডের অর্থায়নে এ ফরমালিন সনাক্তকরণ ‘ডি-হাইড্রেড মেশিন’ স্থাপন করা হয়েছে।

ক্রমান্বয়ে ঢাকার বড় বড় বাজারকে ফরমালিনমুক্ত করার উদ্যোগ নিয়েছে ফেডারেশন অফ বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফবিসিসিআই)।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, সরকার ফরমালিন ও ভেজাল নিয়ন্ত্রণে কঠোর থাকবে। এজন্য কঠোর আইন করা হয়েছে। তবে ব্যবসায়ীদের এজন্য এগিয়ে আসতে হবে। সাধারণ মানুষকেও সচেতন হতে হবে। প্রয়োজনে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরে অভিযোগ করতে হবে। এজন্য সচেতনতার কোন বিকল্প নেই।

ব্যবসায়ীদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ব্যবসায়ীদের উদ্যোগের কারণেই ফরমালিনমুক্ত এই কাজ সহজ হয়েছে। তবে সারাদেশে এই কাজকে সম্প্রসারণ করতে হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সাংসদ একেএম রহমতুল্লাহ, এফবিসিসিআই’র সভাপতি এ কে আজাদ, প্রথম সহ-সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন, এক্সিম ব্যাংকের পরিচালক মো. নুরুল ফজল বুলবুল প্রমুখ।

এর আগে এফবিসিসিআই’র অর্থায়নে মালিবাগ, শান্তিনগর, মহাখালী বাজারে ফরমালিন সনাক্তকরণ মেশিন স্থাপন করা হয়েছে।

রাজধানীর চতুর্থ বাজার হিসেবে ‘ফরমালিনমুক্ত’ ঘোষিত হলো গুলশান-২ নম্বর বাজার। ডি হাইড্রেট মেশিন দিয়ে গুলশান বাজারে আগত সব কাঁচা সবজি ও মাছে ফরমালিন পরীক্ষা করা হবে। ফরমালিন পরীক্ষা না করে কোন কাঁচা পণ্য বিক্রি করতে পারবেন না কোন ব্যবসায়ী।

অর্থ বাণিজ্য বাংলাদেশ রাজনীতি শীর্ষ খবর