বিদ্যুৎ ও জ্বালানিখাতে কারিগরী সহায়তা দিতে আগ্রহী ইরান

দেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানিখাতে কারিগরী সহায়তা দিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে ইরান। এছাড়া রেলওয়ের আধুনিকায়ন, মানবসম্পদ উন্নয়ন, কৃষি যন্ত্রপাতি তৈরি ও কৃষিপণ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্পেও বাংলাদেশকে সহায়তা দিতে আগ্রহী তারা।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ সফররত ইরানের শিল্প, খনিজ ও বাণিজ্যবিষয়ক মন্ত্রী মাহদী গাজানফারি শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়ার সঙ্গে বৈঠকে এ আগ্রহের কথা জানান। রাজধানীর রূপসী বাংলা হোটেলে এ দ্বিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় শিল্প সচিব মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ্, যুগ্মসচিব খলিলুর রহমান সিদ্দিকীসহ শিল্প মন্ত্রণালয় ও ডি-৮ শিল্প মন্ত্রী সম্মেলন উপলক্ষে ঢাকায় আগত ইরানি ডেলিগেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে ডি-৮ রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে দ্বিপাক্ষিক ও বহুপাক্ষিক সহায়তার বিভিন্ন দিক নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। ডি-৮ দেশগুলোর মধ্যে পারস্পরিক সহায়তার জন্য পূর্ব নির্ধারিত ১২টি শিল্পখাত ছাড়াও সম্ভাবনাময় অন্যান্য শিল্পখাতে কারিগরী ও প্রযুক্তিগত সহায়তার ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়।

বৈঠকে ইরানি মন্ত্রী মাহদী গাজানফারি ডি-৮ সদস্য রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে বহুপাক্ষিক সম্পর্ক বৃদ্ধির ওপর গুরুত্ব দেন। তিনি সদস্য দেশগুলোর সম্মিলিত অংশগ্রহণে সার, জ্বালানিসহ গুরুত্বপূর্ণ শিল্পখাতে যৌথ প্রকল্প গ্রহণের প্রস্তাব করেন।

বৈঠকে শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়া বলেন, “ডি-৮ সদস্য রাষ্ট্রগুলোর বিরাট জনসংখ্যা ও অভিন্ন সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য আন্তঃবাণিজ্য বৃদ্ধির চমৎকার সুযোগ এনে দিয়েছে।” ইস্পাত, অটোমোবাইল ও রেলওয়েখাতের আধুনিকায়নের পাশাপাশি বাংলাদেশে সিমেন্ট কারখানা ও খাদ্যগুদাম স্থাপনে ইরানের সহায়তার প্রস্তাব করেন তিনি।

অর্থ বাণিজ্য