শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশ দূতাবাসে হামলা

শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশ দূতাবাসে হামলা

শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশ দূতাবাসে হামলা চালিয়েছে দেশটির বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের লোকজন। বাংলাদেশের কক্সবাজারের রামুর ঘটনা শ্রীলঙ্কান সংবাদপত্রে প্রকাশের পর থেকে স্থানীয় জনগণের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। তারই অংশ হিসেবে এই হামলা হয়েছে বলে জানায় স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো।

বৃহস্পতিবার বিকেল চারটায় শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বোতে বাংলাদেশ দূতাবাস ঘেরাও করে একদল উত্তেজিত লোক।  এসময় পানির বোতল ও ঢিল ছুড়ে দূতাবাসের জানালার কাচ ভেঙ্গে ফেলে তারা।

ঘটনার কিছুক্ষণের মধ্যে শ্রীলঙ্কান ডেইলি মিরর তার অনলাইন সংস্করণে খবরটি প্রকাশ করে। পত্রিকাটি লিখেছে, বিক্ষুব্ধ বৌদ্ধ সম্প্রদায় রামুর ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে।

হামলার বিষয়ে বাংলাদেশ দূতাবাসের সঙ্গে মোবাইলফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও কথা বলার জন্য কাউকে পাওয়া যায়নি। তবে শ্রীলঙ্কান ডেইলি মিররের বিশেষ প্রতিনিধি চান্যক ডি সিলভা বাংলানিউজকে জানান, প্রায় এক হাজার লোকের একটি দল ঘেরাও কর্মসূচিতে অংশ নেয়। বড় কোনো অঘটন ঘটার আগেই পুলিশ এসে পরিস্থিতি সামাল দেয়।

বাংলাদেশ দূতাবাসে এখন পুলিশের কড়া প্রহরা বসানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে বিষয়টি আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ কাভার করতে আসা সাংবাদিকরাও আতঙ্কে রয়েছেন। কেউ দেশের পরিচয় জানতে চাইলে এড়িয়ে যাচ্ছেন তারা।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর কক্সবাজারের রামুতে হামলা চালিয়ে স্থানীয় বুদ্ধ সম্প্রদায়ের ৩০টি বাড়ি জ্বালিয়ে দেয়। এবিষয়ে কলম্বোর সংবাদমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়েছে, ওই ঘটনায় ১০টি বৌদ্ধ মন্দির জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে।

কলম্বোর একজন সিএনজি চালকের সঙ্গে পরিচয় গোপন করে কথা বললে তিনি জানান, বাংলাদেশের ওই ঘটনায় তারা ভীষণ ক্ষুব্ধ।

বাংলাদেশ