আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সেমিনারে বক্তারা গণতন্ত্রের জন্য রাজনীতিতে সৌহার্দ্য অপরিহার্য

আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সেমিনারে বক্তারা গণতন্ত্রের জন্য রাজনীতিতে সৌহার্দ্য অপরিহার্য

নিউইয়র্কে এক ব্যতিক্রমী সেমিনারে অংশ নিয়ে দেশ ও প্রবাসের মিডিয়া কর্মীরা বলেছেন, বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে রক্ষা এবং সুসংহত করতে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে সৌহার্দ্য অপরিহার্য। জাতীয় ইস্যুতে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে ঐক্যমত সৃষ্টি হওয়া জরুরি।

বক্তারা বলেন, বাংলাদেশ অপার সম্ভাবনার দেশ। রাজনৈতিক সহিংসতা না থাকলে বাংলাদেশ মালেশিয়া-সিঙ্গাপুরের মত উন্নত দেশে পরিণত হতে পারে। দেশের রাজনৈতিক সংকট থেকে উত্তরণের পথ একমাত্র রাজনীতিবিদরাই বের করতে পারেন, অন্য কোন শক্তি নয়।

স্থানীয় সময় ২৯ মে শনিবার ‘আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাব আয়োজিত ‘দেশের রাজনৈতিক সংকট এবং প্রবাসীদের ভাবনা’ শীর্ষক এক সেমিনারে বক্তারা এ সব কথা বলেন।

নিউইয়র্কের আটলান্টিকে প্রবাহিত হাডসন নদীতে চলমান ‘স্কাইলাইন প্রিন্সেস’ নামক জাহাজে অনুষ্ঠিত সেমিনারে সাংবাদিকরা ছাড়াও বাংলাদেশ এবং যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত রাজনীতিবিদ এবং কমিউনিটি নেতারা অংশ নেন।

মুল প্রবন্ধ পাঠ করেন সাপ্তাহিক আজকাল সম্পাদক আহমেদ মুসা। তিনি বলেন, আমাদের প্রধান প্রধান রাজনৈতিক দলগুলি যদি অতীতের ভুল থেকে শিক্ষা নিত, তাহলে জাতির মঙ্গল হতো।  ১৯৮৬ ও ৮৮‘র নিরর্থক নির্বাচন, ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারির একতরফা-হাস্যকর নির্বাচন এবং ২০০৭  সালের একতরফা নির্বাচনী প্রচেষ্টার করুণ পরিণতি থেকেও যদি তারা শিক্ষা নিত তাহলে রাজনীতিতে সংকট তৈরি হতো না। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশে এখন আক্ষরিক অনাহার ছড়িয়ে পড়েছে সারাবিশ্বে, তাদের রেমিট্যান্স দেশের অর্থনীতির অন্যতম প্রাণপ্রবাহ। দেশে এখন অঢেল সম্পদ। বাংলাদেশ অর্জন করেছে নোবেল প্রাইজও। অপরদিকে নৈরাজ্য, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা-পরায়ণতা, আইনÑশৃঙ্খলার অবনতি চরমে। সর্বোপরি রাজনীতি এখন মেধা-মনীষা ও অঙ্গীকার শূন্যপ্রায়। সৎ ও নিবেদিতরা রাজনীতি থেকে দূরে সরে যাচ্ছে, মন্দ লোকেরা দখল করছে বড়  স্থান। ভুল লোক বসে আছে শুদ্ধ জায়গায়।

সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র সফররত প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব আবুল কালাম আজাদ। মূল প্রবন্ধের ওপর আলোচনায় অংশ নেন যুক্তরাষ্ট্র সফররত দৈনিক ইত্তেফাক-এর বিশেষ প্রতিনিধি ফারাজী আজমল হোসেন, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ প্রতিদিনের বিশেষ প্রতিনিধি শাবান মাহমুদ, জাতীয় প্রেসক্লাবের ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য ও দৈনিক ইত্তেফাকের সিনিয়র সহ-সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, এনটিভি’র হেড অফ করেসপন্ডেট জহিরুল আলম, আমাদের দেশ-এর নগর সম্পাদক এম. আব্দুল্লাহ, ইনডিপেন্ডেন্ট টিভি’র সিনিয়র রিপোর্টার অনিমেষ কর, এটিএন বাংলা ইউএস-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট ফখরুল আলম, এটর্নি মঈন চৌধুরী, নিউনেশন প্রতিনিধি মাহমুদ খান তাসের, মূলধারার রাজনীতিক ও যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতা গিয়াস আহমেদ, জিল্লুর রহমান জিল্লু, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রহিম বাদশা, সোলানায় আলী, শ্রমিক লীগ নেতা সামসুল আলম, জাতীয় পার্টির নেতা আবু তালেব চৌধুরী চান্দু, যুবদল নেতা আবুল কাশেম প্রমুখ।

আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সভাপতি কাজী শামসুল হকের সভাপতিত্বে সেমিনারে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন নাজমুল আহসান, বৈশাখী টিভির টিভি রিপোর্টার হাসানুজ্জামান সাকী।

সভার শুরুতে প্রখ্যাত সাংবাদিক আতাউস সামাদ এবং ফাজলে রশীদের মৃত্যুতে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। অনুষ্ঠানের সঞ্চালক ছিলেন নৌবিহার উদযাপন কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক ও এটিএন নিউজ ইউএস-এর বার্তা প্রধান দর্পণ কবীর, সদস্য সচিব ও দৈনিক ইত্তেফাকের বিশেষ প্রতিনিধি শহীদুল ইসলাম এবং সদস্য ও সাপ্তাহিক আজকালের নির্বাহী সম্পাদক মোহাম্মদ সাঈদ।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে ছিল মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। স্থানীয় কণ্ঠশিল্পী রিচার্ড. মোহন, তানভীর সারোয়ার রানা, ফারজানা পপি, মাধব এবং জিনাত রেহেনা রতœা সঙ্গীত পরিবেশন করেন। নৌভ্রমণ উপলক্ষে ‘সৌহার্দ্য’ নামে একটি সুভেনীর বের করা হয়।

সেমিনার এবং নৌভ্রমণে ঢাকা থেকে আগত সাংবাদিকদের মধ্যে আরো উপস্থিতি ছিলেন দৈনিক নয়াদিগন্তের বিশেষ সংবাদদাতা শওকত হোসেন রচি, আরটিভির চিফ নিউজ এডিটর রাজীব খান, গাজী টেলিভিশনের চিফ রিপোর্টার রকিবুল ইসলাম মুকুল, দৈনিক জনকণ্ঠের সিনিয়র রিপোর্টার নাজনীন আখতার, রেডিও টুডের চিফ রিপোর্টার জাহিদুর রহমান খান, বাংলাভিশনের সিনিয়র রিপোর্টার মাহফুজুর রহমান, দিগন্ত টিভির সিনিয়র রিপোর্টার কামরুজ্জামান বাবলু, এটিএন নিউজের সিনিয়র রিপোর্টার পিনাকী তালুকদার, ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের সিনিয়র রিপোর্টার অনিমেষ কর, ইটিভির সিনিয়র রিপোর্টার জুবায়ের খুকু,  চ্যানেল একাত্তরের সিনিয়র রিপোর্টার মাহবুব স্মারক, দৈনিক ভোরের কাগজ পত্রিকার ডেপুটি চিফ রিপোর্টার আঙ্গুর নাহার মন্টি ও সিনিয়র রিপোর্টার শামীম আহমেদ, দৈনিক করতোয়ার সিনিয়র রিপোর্টার মোতাহার হোসেন, দৈনিক আজ ও আজকাল পত্রিকা’র সম্পাদক ডা. জাহিদ কামাল, দৈনিক ডেসটিনির সহকারী সম্পাদক মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা-বাসসের চিফ ফটো জার্নালিস্ট সাইফুল ইসলাম কল্লোল এবং ফোকাসবাংলার ব্যবস্থাপনা সম্পাদক ইয়াসিন কবির জয় প্রমুখ।

কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সভাপতি নার্গিস আহমেদ, জালালাবাদ এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি বদরুন নাহার খান মিতা, জেবিবিএ’র সাবেক সভাপতি সাঈদ রহমান মান্নান, ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম পাটোয়ারি, আব্দুর রউফ চৌধুরী ও বিলাল চৌধুরী, কমিউনিটি নেতা এমদাদুল হক কামাল, আজাদ বাকীর, আনোয়ারুল ইসলাম, নর্থবেঙ্গল ফাউন্ডশনের সভাপতি হাসানুজ্জামান হাসান, এস. এম. জাহাঙ্গীর, রফিকুল ইসলাম, শাহাদাত হোসেন, নির্মল পাল, মুক্তিযোদ্ধা আর আমীন, মোহাম্মদ মসনুর, মিজানুর রহমান মিজান, সাজ্জাদ হোসাইন, আব্দুর রহমান, ওসমান চৌধুরী, আব্দুল বাসিত প্রমুখ।

রাজনীতি