ফোবানা সম্মেলনে আলিসা অচিরেই মধ্যআয়ের দেশ হবে বাংলাদেশ

ফোবানা সম্মেলনে আলিসা অচিরেই মধ্যআয়ের দেশ হবে বাংলাদেশ

মার্কিন উপ-সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আলিসা আয়ার্স বলেছেন, বাংলাদেশ একটি উদার গণতান্ত্রিক ও ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র। এটা আজ বিশ্বের কাছে স্বীকৃত। তিনি বলেন, দেশটির ১৬ কোটি মানুষ তাদের ভাগ্যোন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে। এ প্রচেষ্টা অবাহত থাকলে বাংলাদেশ অচিরেই মধ্য আয়ের দেশে পরিণত হবে।

স্থানীয় সময় শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা রাজ্যের অরল্যান্ডো কিসিমি ওয়ার্ল্ডগেট কনভেনশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত ২৬তম ফোবানা সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক মার্কিন এই উপ-সহকারী মন্ত্রী। তিন দিনব্যাপী সম্মেলন শেষ হবে হবে রোববার। বাংলাদেশ সোসাইটি অব সেন্ট্রাল ফ্লোরিডা এবং চয়নিকা শিল্পী গোষ্ঠী এবারের ফোবানা সম্মেলনের আয়োজক।

ড. আলিসা আয়ার্স গ্রামীণ ব্যাংক ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকের কর্মকা-ের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, বাংলাদেশের দারিদ্র্য বিমোচনে এ দুটি প্রতিষ্ঠান বিশ্বের বুকে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। তিনি গণতন্ত্র ও সুশাসন প্রতিষ্ঠা এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নে বাংলাদেশের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলেন, বাংলাদেশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উন্নয়ন সহযোগী অন্যতম অংশীদার।

বিপুলসংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশীর এই মিলনমেলায় দেওয়া বক্তব্যে আলিসা আয়ার্স ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান মজিনার বরাত দিয়ে বলেন, বাংলাদেশ সন্ত্রাস দমনে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আন্তরিকভাবে কাজ করছে। তিনি নানাবিধ অংশীদারিত্বের কথা উল্লেখ করে বলেন, মার্কিন উন্নয়ন সংস্থাগুলো বাংলাদেশের উন্নয়নে প্রায় ২০০ মিলিয়ন ডলার বরাদ্দ রেখেছে। আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের পর দক্ষিণ এশিয়ার কোনো দেশের উন্নয়নে এটাই সর্বোচ্চ প্রতিশ্রুতি। তিনি বলেন, বাংলাদেশই একমাত্র দেশ যারা মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ঘোষিত বিশ্বস্বাস্থ্য, খাদ্য নিরাপত্তা, জলবায়ূ পরিবর্তন এবং মুসলিম দেশগুলোর সঙ্গে ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সম্পর্কের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাচ্ছে। এ জন্যই মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন গত মে মাসে ঢাকা সফর করেছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, তার এই সফর বাংলাদেশের সঙ্গে শক্তিশালী ও গভীর বন্ধুত্বপূর্ণ ভূমিকাকে আরো সুদৃঢ় করেছে। তিনি দুদেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা করে এ কার্যক্রমকে এগিয়ে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

২০০৫ সালে সারা দেশে এক যোগে বোমা হামলার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে আলিসা আয়ার্স তার বক্তব্যে বলেন, এ ঘটনার পর বিশ্ববাসী মনে করেছিল যে বাংলাদেশ একটি জঙ্গিবাদ রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। কিন্তু পরবর্তীতে সরকার কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করায় সে অবস্থার দ্রুত পরিবর্তন হয়েছে। তিনি বাংলাদেশকে পোশাক শিল্পে বিশ্বের সুপার পাওয়ারের দেশ উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশ এ খাতে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম পোশাক রপ্তানিকারক দেশ। এটা অনেক দেশের কাছে ঈর্ষণীয় ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের উন্নয়নে বিভিন্ন পেশায় কর্মরত প্রবাসী বাংলাদেশীদের অবদানের প্রশংসা করে তিনি নিজেদের কৃষ্টি ও সংস্কৃতি চর্চার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের মূলধারার সঙ্গে সম্পৃক্ত হওয়ার পরামর্শ দেন।

পরে অনুষ্ঠানের মূল মঞ্চে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন ও কোরান তেলাওয়াতের পর ফোবানা স্টিয়ারিং কমিটির নেতৃবৃন্দকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ফোবানা চেয়ারম্যান মুরাদ ঠাকুর, আহবায়ক খালেদ খোদা, সদস্য সচিব বাবুল হাই, যুগ্ম আহবায়ক সাইফুল ভুইয়া দুলু এবং উপদেষ্টা আজম চৌধুরী ও কিউএম নুরুল ইসলাম।

উদ্বোধনের পর বাংলাদেশ থেকে আগত এবং স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এটিএন বাংলা এ সম্মেলনের মিডিয়াা পার্টনার।

বাংলাদেশ