বন্যায় ২য় সর্বোচ্চ ঝুঁকিপুর্ণ শহর ঢাকা

বন্যায় ২য় সর্বোচ্চ ঝুঁকিপুর্ণ শহর ঢাকা

বন্যায় বিশ্বের সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ নয়টি শহরের মধ্যে ঢাকা দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে বলে এক আর্ন্তজাতিক গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

বন্যার ঝঁ^ুকি নির্ণয়ে নেদারল্যান্ডস ও যুক্তরাজ্যের লিডস বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা নতুন একটি পদ্ধতিতে গবেষণা চালিয়ে কোস্টাল সিটি ফ্লাড ভালনারেবিলিটি সূচকও (সিসিএফভিআই) তৈরি করেছে। এ বন্যা-ঝুঁকির এ সূচকে ঢাকার ওপরে রয়েছে চীনের সাংহাই।

ন্যাচারাল হ্যাজার্ডস নামের যুক্তরাজ্যভিত্তিক এক সাময়িকীতে প্রকাশিত ওই গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সাগরপৃষ্ঠের মাত্র ৪ মিটার ওপরে থাকা ঢাকায় নিয়মিতই বন্যা হয়। কিন্তু শহরটিতে বন্যা প্রতিরোধে ব্যবস্থা খুবই সামান্য।

বন্যার ঝুঁকি নির্ণয়ে শহরের ভৌগলিক অবস্থানের পাশাপাশি আর্থ-সামাজিক ও রাজনৈতিক বিষয়গুলোও বিবেচনায় আনা হয়েছে।

সাংহাই ও ঢাকার পর বন্যার ঝুঁকিতে থাকা শহরগুলোর মধ্যে ক্রম অনুযায়ী আছে, কোলকাতা (ভারত), ম্যানিলা (ফিলিপাইন), কাসাব্লাংকা (মরক্কো), রটারডাম (নেদারল্যান্ডস), বুয়েনস আইরেস (আর্জেন্টিনা), মার্সেই (ফ্রান্স) ও ওসাকা (জাপান)।

এ শহরগুলো বদ্বীপ অঞ্চলে অবস্থিত বলে এগুলো বেছে নেওয়া হয়েছে।

গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শক্তিশালী ঝড়ের কবলে পড়ার সম্ভবনা বাড়ায় সাংহাই বিশ্বের মধ্যে বন্যায় সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ শহর।

প্রধানত শহরের আকার, আক্রান্ত হওয়ার মাত্রা ও তুলনামূলক কম স্থিতিস্থাপকতার কারণে ঢাকার পরে ঝুঁকিবহুল হিসেবে ফিলিপাইনের শহর ম্যানিলা ও ভারতের শহর কলকাতা যৌথভাবে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ঢাকা, সাংহাই ও ম্যানিলার বন্যার সামাজিল ঝুঁকি ২১০০ সালের মধ্যে দ্বিগুণ হতে পারে।

লিডস বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরকৌশল বিভাগের শিক্ষক ও এ প্রতিবেদনের সহযোগী লেখক নাইজেল রাইট বিবিসিকে বলেন, ১৯টি বিষয়ে ব্যাপক তথ্য নিয়ে সিসিভিআই তৈরি করা হয়েছে।

“আমরা এখনও গবেষণায় শহরের ভৌত বৈশিষ্ট্য ব্যবহার করেছি। তবে সাথে সাথে স্থিতিস্থাপকার নানা দিকে যথার্থ বিনিয়োগের মাধ্যমে নাগরিক ও তাদের সম্পদ রক্ষায় সরকারের কতটুকু নজর দেওয়া উচিত তা বোঝাতে অর্থনৈতিক ও সামাজিক দিকগুলোও বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে।”

এতে উপকূলীয় অঞ্চলের কাছাকাছি বসবাসকারী জনসংখ্যার হার, বন্যা থেকে পুনরুদ্ধারে জন্য প্রয়োজনীয় সময়, উপকূলীয় অঞ্চলে অনিয়ন্ত্রিত উন্নয়ন এবং শহরে বন্যার পানি প্রবেশে বাধা দেওয়ার ক্ষেত্রে পদক্ষেপের পরিমাণ বিবেচনা করা হয়েছে।

তবে জাতীয় সমন্বিত দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মসূচির প্রকল্প পরিচালক মোহাম্মদ আবদুল কাইউম এ প্রতিবেদনের বিষয়ে  বলেন, “একটি দেশ হিসেবে বাংলাদেশের বন্যার ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি। তবে কোনো একটি এলাকাকে কেন্দ্রবিন্দু হিসেবে ধরলে ঢাকা অবশ্যই সবচেয়ে ঝুঁকির শহর নয়।”

ঢাকায় ‘শহুরে বন্যার’ ঝুঁকি আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, “ঢাকার প্রায় ৫০ ভাগ এলাকা বাঁধ দিয়ে সংরক্ষিত নয় বলে পূর্বাঞ্চল থেকে মৌসুমি বন্যার পানি ঢুকতে পারে এখানে।”

ঢাকার বন্যা-ঝুঁকির জন্য অপরিকল্পিত নগরায়ণ ও যথাযথ পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থার ঘাটতিকে দায়ী করেন তিনি।

বাংলাদেশ