ক্ষুব্ধ মন্ত্রীরা: ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর বাড়ির সামনে নিরাপত্তার ‘বাড়াবাড়ি’

ক্ষুব্ধ মন্ত্রীরা: ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর বাড়ির সামনে নিরাপত্তার ‘বাড়াবাড়ি’

ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের বাসভবনের সামনে নিরাপত্তার ‘বাড়বাড়ি’ নিয়ে অভিযোগ করেছেন মন্ত্রীরা। প্রধানমন্ত্রীর বাড়িতে প্রবেশের আগে দীর্ঘক্ষণ ধরে তল্লাশি প্রক্রিয়া চালানোয় ক্ষুব্ধ হয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের কাছে অভিযোগ করেছেন তারা।

এছাড়া শনিবার মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর পাশে আসন না দেওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টির (এনসিপি) দুই নেতা শারদ পাওয়ার ও প্রফুল্ল প্যাটেল।

মহারাষ্ট্রে কংগ্রেসের সঙ্গে তাদের সমন্বয় হচ্ছে না এবং গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় কংগ্রেস তাদের উপেক্ষা করে যাচ্ছে এমন অভিযোগ করেছে এনসিপি। আর শনিবারের বৈঠকে দলের নেতা শারদ পাওয়ারকে প্রধানমন্ত্রীর পাশে বসতে না দেওয়াকে কংগ্রেসের বাড়াবাড়ি বলে উল্লেখ করেছে দলটি।

অপর দিকে ফারুক আব্দুল্লাহ’র নেতৃত্বে তিনজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মন্ত্রিপরিষদ সচিবের কাছে অভিযোগ করে বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর নয়াদিল্লির রেসকোর্স রোডের ৭নং বাড়িতে প্রবেশের আগে দীর্ঘ সময় ধরে নিরাপত্তা প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার কারণে তাদের বৈঠকে যোগ দিতে দেরি হয়ে গেছে।”

তারা বলেন, প্রধানমন্ত্রীর বাড়িতে প্রবেশের আগে তাদের আনুষঙ্গিত নিরাপত্তা তল্লাশির জন্য দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হয়েছে। এতে করে বাড়ির মূল ফটকের সামনে গাড়ি বহরের দীর্ঘ লাইন পড়ে যায়।

তাদের বক্তব্য অনুযায়ী, মূল ফটকে নিরাপত্তা কর্মকর্তারা মন্ত্রীদের প্রতিটি গাড়ি আগাগোড়া তল্লাশি করেছে। এমনকি আক্ষরিক অর্থেই গাড়ির ভেতরে উঁকি দিয়ে নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা করেছে সেখানে মন্ত্রী সত্যিই আছেন কি না। এর পর তাদের হাতে থাকা তালিকায় সেই মন্ত্রীর নামের পাশে টিক চিহ্ন দিয়ে গাড়ি প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এসময় মন্ত্রীর ব্যক্তিগত সচিবকে গাড়ি থেকে নেমে যেতে বলা হয়েছে।

এ ধরনের দীর্ঘ তল্লাশিকে স্বাভাবিক প্রক্রিয়া বলা হলেও শনিবারের মন্ত্রিপরিষদ বৈঠকে অনেক মন্ত্রী বিলম্বে যোগ দিতে বাধ্য হয়েছেন বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।

এদিকে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছেন এবং ঘটনার ব্যাপারে দ্রুত খোঁজখবর নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

আন্তর্জাতিক