সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধ চলছে: আন্তর্জাতিক রেডক্রস

সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধ চলছে: আন্তর্জাতিক রেডক্রস

আন্তর্জাতিক রেডক্রস ঘোষণা করেছে, সিরিয়ায় এখন পূর্ণমাত্রার গৃহযুদ্ধ পরিস্থিতি বিরাজ করছে।সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে সরকার ও বিদ্রোহীদের মধ্যে লড়াই ছড়িয়ে পড়ার মধ্যেই এ ঘোষণা দিলো জেনেভা ভিত্তিক সংস্থাটি।

সংস্থার এ ঘোষণার ফলে দেশটিতে সংঘটিত যুদ্ধাপরাধের ব্যাপারে আন্তর্জাতিক বিচারের পথ প্রসারিত হলো বলে ধারণা করা হচ্ছে। যদিও রেডক্রসের নির্দেশনা ছাড়াও যুদ্ধাপরাধের বিচার সম্ভব, তবে সংস্থাটির এ সংক্রান্ত সুপারিশ ভবিষ্যতে যে কোনো আন্তর্জাতিক বিচারে শক্ত দলিল হিসেবে গ্রহণ করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে উভয় পক্ষের চলমান সংঘাত দ্বিতীয় দিনে গড়িয়েছে। সিরিয়ার বিরোধী রাজনৈতিক গ্রুপ লোকাল কো অর্ডিনেশন কমিটি জানিয়েছে, সোমবার সকাল থেকেই বিরোধীদের অবস্থান লক্ষ করে নির্বিচারে মর্টারের গোলাবর্ষণ করে সরকারি বাহিনী।

রাজধানীর তাদামোন, কাফর সাসেহ,নাহর আইশা এবং সিদি কাদাদসহ অন্যান্য এলাকায় সরকারি বাহিনী রাতভর সামরিক অভিযান চালিয়েছে।

ব্রিটেন ভিত্তিক সিরিয়ান অবসার্ভেটরি ফর হিউমান রাইটস জানিয়েছে, সোমবার ভোরে কাফর সাসেহতে বিদ্রোহী ও সরকারি সেনাদের রাতভর সংঘর্ষ চলে। এ এলাকায় রাস্তা ধরে যাওয়া একটি সেনা কনভয়ের ওপর বিদ্রোহীরা হামলা চালালে লড়াই শুরু হয় বলে স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে জানায় তারা।

এছাড়া দামেস্কের ২০ কিলোমিটার দূরের কাতানা, হোমসের খালিদিয়াহ, জার্ত আল শিয়া এবং কারাবেকে গোলাবর্ষণ করেছে সরকারি বাহিনী।পাশাপাশি রোববার মধ্যাঞ্চলীয় হামা নগরীতেও অভিযান চালায় সিরীয় বাহিনী।

তবে হামলা চালানোর অভিযোগ অস্বীকার করে সিরীয় সরকার দাবি করেছে , সন্ত্রাসীদের কবল থেকে বেসামরিক লোক ও সম্পদ রক্ষা করতেই অভিযান চালাচ্ছে তারা।

পাশাপাশি ত্রেমসেহ গ্রামে সংঘটিত গণহত্যার অভিযোগও অস্বীকার করেছে সিরিয়া। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জিহাদ মাকসিদি বলেন, নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে গ্রামটিতে ৩৭ বিদ্রোহী যোদ্ধা এবং দুই বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়।

সিরিয়ায় নিযুক্ত জাতিসংঘের পরিদর্শকরা রোববার দ্বিতীয় দিনের মতো সংঘাত বিধ্বস্ত ত্রেমসেহ গ্রামে প্রবেশ করেছেন। তারা সেখানে সংঘটিত ক্ষয়ক্ষতির ব্যাপারে তথ্য প্রমাণ সংগ্রহের চেষ্টা করছেন বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম।

সিরিয়া সংক্রান্ত জাতিসংঘের বিশেষ দূত কফি আনান রাশিয়ার নেতাদের সঙ্গে কথা বলতে মস্কো পৌঁছেছেন। তবে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী অভিযোগ করেছেন, সিরীয় পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে রাশিয়াকে ‘ব্লাক মেইল’ করার চেষ্টা করছে পশ্চিমা দেশগুলো।

এদিকে অন্যান্য কয়েকটি আরব দেশের পদাঙ্ক অনুসরণ করে এবার মরক্কো তার দেশ থেকে সিরীয় রাষ্ট্রদূতকে বহিস্কার করার ঘোষণা দিয়েছে। সোমবার মরক্কোর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে প্রকাশিত বিবৃতিতে দেশটিতে নিযুক্ত সিরীয় রাষ্ট্রদূতকে অবিলম্বে রাবাত ত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়।

আন্তর্জাতিক