গৌরবের ৬০ বছর পূর্তি খেলাঘর পদক পাচ্ছেন ৫ বরেণ্য ব্যক্তিত্ব

গৌরবের ৬০ বছর পূর্তি খেলাঘর পদক পাচ্ছেন ৫ বরেণ্য ব্যক্তিত্ব

দেশের সর্ববৃহৎ ঐতিহ্যবাহী শিশু-কিশোর সংগঠন খেলাঘর এ বছর অতিক্রম করছে গৌরবের ছয় দশক। ৬০ বছর পূর্তি উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রের ৪ জন বরেণ্য ব্যক্তিত্ব ও একজন অগ্রণী খেলাঘর সংগঠককে খেলাঘরের প্রতিষ্ঠাতাদের নামে বিভিন্ন পদকে ভূষিত করা হবে।

কেন্দ্রীয় খেলাঘর আসর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে প্রতি বছর খেলাঘরের প্রতিষ্ঠাতাদের নামে পদক প্রদান করে থাকে।

এ বছর রণেশ দাশগুপ্ত পদক পাবেন অধ্যাপক জিল্লুর রহমান সিদ্দিকী, সত্যেন সেন পদক পাবেন শিল্পী সোহরাব হোসেন, শহীদুল্লাহ কায়সার পদক পাবেন সাংবাদিক গোলাম সারোয়ার, কবি হাবিবুর রহমান পদক পাবেন কথাসাহিত্যিক রাহাত খান এবং সাংবাদিক বজলুর রহমান স্মৃতিপদক পাবেন খেলাঘর সংগঠক আলতাফ মাহমুদ।

সোমবার দুপুর ১২টায় বঙ্গভবনের দরবার হলে গৌরবের ৬০ বছর পূর্তি অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি মোঃ জিল্লুর রহমান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে পদকপ্রাপ্তদের হাতে পদক তুলে দেবেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন খেলাঘর কেন্দ্রীয় কমিটি সভাপতিমণ্ডলীর চেয়ারম্যান অধ্যাপিকা পান্না কায়সার।

খেলাঘর বাংলাদেশের বৃহত্তম জাতীয় শিশু-কিশোর সংগঠন। মহান ভাষা আন্দোলনের চেতনাকে বুকে ধারণ করে ১৯৫২ সালের ২ মে খেলাঘর প্রতিষ্ঠা লাভ করে। শহীদ শহীদুল্লাহ কায়সার, কবি হাবিবুর রহমান ভাইয়া, রণেশ দাশগুপ্ত, সত্যেন সেন, পটুয়া কামরুল হাসান, শহীদ জহির রায়হান, সাংবাদিক বজলুর রহমানসহ তৎকালীন সময়ের সূর্য সন্তানেরা খেলাঘরের প্রতিষ্ঠাতা।

শিশু-কিশোরদের সুপ্ত প্রতিভা বিকাশের মাধ্যমে দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলা, শিশু অধিকার প্রতিষ্ঠা ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ, সৃজনশীল সাহিত্য, খেলাধুলা ও বিজ্ঞান চর্চা, নাচ, গান, আবৃত্তি, অভিনয়, ছবি আঁকার প্রশিক্ষণ প্রদানসহ মৈত্রীর বন্ধনে শান্তিময় বিশ্ব গড়া, দেশপ্রেমিক মানবতাবাদী আদর্শে সুনাগরিক গড়ে তোলার লক্ষ্যে খেলাঘর কাজ করছে সুদীর্ঘ সময় ধরে। আনন্দময় শৈশব ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় নতুন প্রজন্ম গড়ে তোলার মাধ্যমে অসাম্প্রদায়িক, যুদ্ধাপরাধীমুক্ত সুখী-সুন্দর বাংলাদেশ সৃজনও খেলাঘরের লক্ষ্য।

বর্তমানে সারা দেশে সাড়ে ছয় শতাধিক শাখা আসরের মাধ্যমে লাখো শিশু-কিশোরদের নিয়ে কাজ করছে খেলাঘর।

বাংলাদেশ