ভারতের অগ্নি-৫ সফল

ভারতের অগ্নি-৫ সফল

ভারতের এ যাবতকালের সবচেয়ে শক্তিশালী ক্ষেপণাস্ত্র অগ্নি-৫ এর সফল পরীক্ষা সমাপ্ত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় ভোর ৪টার দিকে দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলীয় উড়িষ্যা রাজ্যের হুইলার দ্বীপের সমুদ্র উপকূলে ক্ষেপণাস্ত্রটি পরীক্ষা করা হয়।

ডিআরডিও প্রধান বি কে সারস্বত বলেন- অগ্নি-৫ এর পরীক্ষামূলক উক্ষেপণ সম্পূর্ণ সফল হয়েছে।

এ সাফল্যে প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং, প্রতিরক্ষামন্ত্রী একে অ্যান্টনি ডিআরডিও’র (ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অরগানাইজেশন) বিজ্ঞানীদের অভিনন্দন জানিয়েছেন।

মূলত অগ্নির সফল উৎক্ষেপণ পরীক্ষণের মাধ্যমে ভারত বিশ্বে মিসাইল সুপার পাওয়ার হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করলো।

পাঁচ হাজার কিলোমিটার দূরের লক্ষ্যভেদে সক্ষম এই আন্তঃমহাদেশীয় (আইসিবিএম) ক্ষেপণাস্ত্র অগ্নি-৫ ভারতের সবচেয়ে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র। অর্থাৎ পারমাণবিক বোমা বহনে সক্ষম ক্ষেপণাস্ত্রটির লক্ষ্যভেদের আওতায় চীনের রাজধানী বেইজিংসহ প্রায় সমস্ত এশিয়া মহাদেশ তো থাকছেই এমনকি ইউরোপের সবগুলো দেশ এবং আফ্রিকায় আঘাত হানতে পারবে এটি। ডিআরডিও জানিয়েছে, শুধুমাত্র আমেরিকা ছাড়া পৃথিবীর সব অঞ্চল অগ্নি-৫ এর আওতায় রয়েছে।

ভারতের নিজস্ব প্রযুক্তিতে তৈরি ১৭ মিটার দীর্ঘ এবং ৫০ টন ওজনের ক্ষেপণাস্ত্রটি কঠিন জ্বালানিতে চলে। এটি এক টন ওজনের পারমাণবিক ওয়ারহেড বহন করতে সক্ষম বলে জানিয়েছে ডিআরডিও। বিশ্বে বর্তমানে এই মানের আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র এতদিন শুধুমাত্র যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, ফ্রান্স আর ভারতের প্রতিবেশী চীনের কাছে ছিল। এখন থেকে ভারতও সেই তালিকায় যুক্ত হল।

প্রসঙ্গত,এর আগে গত বুধবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টায় অগ্নি-৫ এর পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণের দিনক্ষণ ঠিক ছিল। কিন্তু বিরূপ আবহাওয়ার কারণে তা স্থগিত করা হয়।

তিন ধাপ বিশিষ্ট ক্ষেপণাস্ত্রটি ক্ষেপণাস্ত্রটি নির্মিত হয় ডিআরডিও’র নকশা ও তত্ত্বাবধানে।

তবে ক্ষেপণাস্ত্রটি এখনও পরবর্তী পরীক্ষাধীন পর্য্যয়ে আছে জানিয়ে ডিআরডিও বলেছে, ২০১৪-১৫ সাল নাগাদ একে চূড়ান্তভাবে ভারতীয় সামরিক বাহিনীতে সংযোজন করা যাবে।

আন্তর্জাতিক