বিশ্বের সবচেয়ে ‘কুৎসিত কুকুর’ ইয়োদা মারা গেছে

বিশ্বের সবচেয়ে ‘কুৎসিত কুকুর’ ইয়োদা মারা গেছে

পৃথিবীর সবচেয়ে ‘কুৎসিত কুকুর’ ইয়োদা মারা গেছে।গত বছর যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত পৃথিবীর সবচেয়ে কুৎসিত কুকুর হওয়ার প্রতিযোগিতায় সর্বোচ্চ খেতাব জিতে নেয় ১৫ বছর বয়সী এই কুকুরটি। কুকুরটির মালিক টেরি শুমাখার সংবাদমাধ্যমকে এর মৃত্যুর খবর জানিয়েছেন।

শঙ্কর প্রজাতির এই কুকুরটি গত বছর হঠাৎই বিখ্যাত হয়ে ওঠে, যখন ক্যালিফোর্নিয়ায় অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে এটি অন্য সবাইকে পেছনে ফেলে পৃথিবীর সবচেয়ে কুৎসিত কুকুর হওয়ার গৌরব লাভ করে।

টেরি শুমাখার যখন ইয়োদাকে খুঁজে পান তখন প্রথমে তিনি এই পরিত্যক্ত কুকুরটিকে একটি ইঁদুর ভেবে ভুল করেছিলেন। তিনি ভাবতেও পারেননি এই কুকুরটিই পরবর্তীতে ১ হাজার ডলারের পুরস্কার জিতে নেবে।

ছোটছোট চুলের গোছা, বাইরের দিকে প্রসারিত জিহ্বা থেকে সবসময় ঝরতে থাকা লালা আর চামড়া সর্বস্ব হাড় জিরজিরে ঠ্যাং, সবচেয়ে কুৎসিত কুকুরের খেতাব লাভের জন্য এই গুণগুলোই যথেষ্ট ছিলো ইয়োদার জন্য।

শনিবার ঘুমের মধ্যে অনেকটা অজ্ঞাতেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে কুকুরটি। । মালিক খুঁজে পাওয়ার পূর্ব পর্যন্ত কুকুরটিকে খুবই দুদর্শার মধ্যে জীবন কাটাতে হতো। এসময় ক্ষুদ্র এই কুকুরটির ওজন ছিলো এক কেজিরও কম। অ্যাপার্টমেন্ট ভবনের একটি নোংরা গলির মধ্যে থেকে কুকুরটিকে খুঁজে পান টেরি শুমাখার।

তবে প্রতিযোগিতা জেতার পর হঠাৎ করেই বিখ্যাত হয়ে যায় ইয়োদা। টেলিভিশনের পর্দায় ছিলো এর নিয়মিত উপস্থিতি। এমনকি টেলিভিশন মেকওভার শোতেও অতিথি হিসেবে এর উপস্থিতি ঘটে বেশ কয়েকবার।

কুকুরটি মারা যাওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই দু:খিত মিস শুমাখার। কুকুরটি তাকে অসংখ্য আনন্দময় সময় উপহার দিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন ছোট্ট কুকুরটির অভাব তিনি আজীবন বোধ করবেন। তবে তিনি এই ভেবে খুশি যে কুকুরটি তার পরলোকগত পিতামাতার সঙ্গে মিলিত হবে। তার বাবা মা এই কুকুরটিকে খুব ভালবাসতো বলে জানান তিনি। ইয়োদার স্মৃতি তার মনে আজীবন জাগরূক থাকবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

আন্তর্জাতিক