যে কারণে রোহিঙ্গা শব্দটি বলেননি পোপ

যে কারণে রোহিঙ্গা শব্দটি বলেননি পোপ

মিয়ানমার সফরে রোহিঙ্গা শব্দটি ব্যবহার করেননি ক্যাথলিক ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস। কেন তিনি এই শব্দটি এড়িয়ে গেলেন তা নিয়ে বহু জল্পনা কল্পনা ছিল। অবশেষে পোপ নিজেই বিষয়টি পরিস্কার করলেন। তিনি জানিয়েছেন, দেশটির সামরিক ও বেসামরিক উভয় পক্ষকেই তিনি সঠিক বার্তা দিতে পেরেছেন। রোহিঙ্গা শব্দটি ব্যবহার করে তিনি আলোচনার বন্ধ করতে চাননি। খবর রয়টার্স।

বাংলাদেশ থেকে রোমে ফেরার সময় বিমানে তার সফরসঙ্গী সাংবাদিকদের তিনি এ বিষয়ে কথা বলেছেন। মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর প্রধানের সঙ্গে ব্যক্তিগত বৈঠকে রোহিঙ্গাদের মানবাধিকারের প্রতি সম্মান জানানোর বিষয়টি তুলে ধরেছেন বলে উল্লেখ করেন তিনি।

শুক্রবার রোহিঙ্গাদের একটি দলের সঙ্গে দেখা ও কথা বলার পর কেঁদে ফেলেন পোপ। তিনি বলেন, আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টা বার্তা ঠিকভাবে পৌঁছে দেওয়া। একই সময়ে একটি বিষয়ে কথা বলা এবং অপরপক্ষের জবাব শোনা।

তিনি বলেন, আমি জানি আমি যদি বক্তৃতায় ওই শব্দটি ব্যবহার করতাম, তারা হয়ত আমাদের মুখের ওপরই দরজা বন্ধ করে দিত। কিন্তু আমি পরিস্থিতি, অধিকারের বিষয়গুলো বর্ণনা করেছি। নাগরিকত্বের অধিকার থেকে কাউকে বঞ্চিত করা উচিৎ নয়। এর ফলে আমি ব্যক্তিগতভাবে আলোচনার সুযোগ পেয়েছি।

Leave a Reply