আসিয়ানের ‘হস্তক্ষেপে না’ নীতির সমালোচনায় সু চি

SHARE

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দশ দেশের আঞ্চলিক সংস্থা আসিয়ানের সম্মেলনে অংশ নিতে ফিলিপাইনে পৌঁছেছেন মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চি। রোববার ফিলিপাইনের রাজধানী ম্যানিলায় পৌঁছানোর পর মিয়ানমারের এ নেত্রী তার গণতান্ত্রিক লড়াইয়ের সময় আসিয়ান হস্তক্ষেপ না করায় সংস্থাটির নীতির সমালোচনা করেন।

রোববার ম্যানিলায় পৌঁছানোর পর সু চি আসিয়ানের সমালোচনা করে বক্তব্য দিলেও রোহিঙ্গা সঙ্কট নিয়ে কোনো কথা বলেননি। পরে সোমবার সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে ফের রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে রোহিঙ্গাবিরোধী সেনা অভিযানের জেরে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে ব্যাপাক সমালোচনার মুখে আছেন সু চি। গণতন্ত্রের চ্যাম্পিয়ন হিসেবে পরিচিত সু চির ১৯৯১ সালে পাওয়া শান্তির নোবেল পুরস্কার ফেরত নেয়ারও দাবি উঠেছে। সেনা অভিযানে নীরব ভূমিকা ও নিন্দা না জানানোর কারণে এ দাবি উঠে।

সেপ্টেম্বরে জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্টনিও গুতেরাস রাখাইন পরিস্থিতিকে জাতিগত নিধন চেষ্টা বলে মন্তব্য করেন।

রোববার ম্যানিলায় পৌঁছানোর পর ১৯৯৯ সালে সেনাশাসিত মিয়ানমারে গণতান্ত্রিক লড়াইয়ের সময় আসিয়ানের হস্তক্ষেপ না করার নীতির সমালোচনা করেন সু চি। ওই বছর সু চি থাইল্যান্ডের জাতীয় দৈনিক দ থাই ডেইলিতে নিবন্ধ লিখেন তিনি।

নিবন্ধে তিনি আসিয়ানের নীতির সমালোচনা করে বলেন, হস্তক্ষেপ না করার এ নীতি সহায়তা না করার অপকৌশল মাত্র। এ দিনে এবং যুগে অন্য দেশের ব্যাপারে হস্তক্ষেপের ব্যাপারটি এড়িয়ে চলা যায় না।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY