‘হেফাজতের টার্গেট ছিল সচিবালয়ে হামলা, ব্যাংক লুট, শাপলা অভিযানে মারণাস্ত্র ব্যবহার হয়নি’

‘হেফাজতের টার্গেট ছিল সচিবালয়ে হামলা, ব্যাংক লুট, শাপলা অভিযানে মারণাস্ত্র ব্যবহার হয়নি’

মতিঝিল শাপলা চত্বরে ৫ই মে’র অপারেশনের নাম ছিল ‘অপারেশন সিকিউরড শাপলা ওয়াচ’। আইন ভঙ্গ করে হেফাজতে ইসলাম অবস্থান নেয়ায়, নগরবাসীর জানমালের নিরাপত্তার স্বার্থে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। এতে প্রাণঘাতি কোন অস্ত্র ব্যবহার করা হয়নি। এই অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে ঈর্ষনীয় ক্ষিপ্রতায়। হেফাজতের টার্গেট ছিল সচিবালয়ে হামলা এবং ব্যাংক লুট। ৫ই মে সকাল থেকে রাতে অভিযান পরিচালনা পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যসহ ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। আজ সকালে সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য তুলে ধরেছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার বেনজীর আহমেদ। ডিএমপি কমিশনারের কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবি’র সম্মিলিত (কম্বাইন্ড) অপারেশন ছিল সেটি। জিরো ক্যজুয়ালিটি (কোন প্রাণহানী হবে না) ছিল অপারেশনের মোটিভ। মাত্র ১০ মিনিটের ঈর্ষনীয় ক্ষিপ্রতায় ওই অপারেশনে শাপলা চত্বরকে পরিষ্কার করা হয়। তিনি বলেন, অপারেশনে নিহতের ব্যপারে প্রচারিত সমস্ত তথ্য অসত্য। বিভিন্ন গুজব ছড়ানো হচ্ছে। দুই হাজার, তিন হাজার লোক নিহতের খবর ছড়ানো হচ্ছে। যা সত্য নয়। মিডিয়ার সামনে অপারেশন হয়েছে। ক্যামেরার চোখকে ফাঁকি দেয়া যায় না। দুইটি টিভি পুরো অপারেশনকে লাইভ সম্প্রচার করেছে। দিগন্ত টিভি ও ইসলামিক টিভি বন্ধ করে দিয়ে অপারেশন চালানো হয়েছে বলে যে কথা বলা হচ্ছে না সত্য নয়। দিগন্ত ও ইসলামিক টিভির ক্যামেরাও তখন স্পটে ছিল।
সাদ সম্মেলনে বিজিবি এবং র‌্যাবের প্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন। শাপলা অভিযানে এ দুই বাহিনীও অংশ নেয়।
ডিএমপি কমিশনার বলেন, হেফাজতে ইসলামকে সন্ধ্যা ছয়টার মধ্যে সমাবেশ শেষ করতে বলা হয়েছিল। তারা তা না করে রাতে ও অবস্থান নেয়। হেফাজতের আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে লালবাগ থেকে সমাবেশ স্থলে নেয়ার বারবার চেষ্টা করা হয়। বারবার তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। কিন্তু তিনি নিরাপত্তার কথা বলে সেখানে যাননি। সন্ধ্যায় পুলিশের নিরাপত্তায়, পুলিশের গাড়িতে করে তাকে মতিঝিলে নেয়ার পথে পলাশী থেকে তিনি আবার ফিরে যান।
তিনি দাবি করেন, পুলিশ সদস্যদের পুড়িয়ে মারার জন্য হেফাজত কর্মীরা পুলিশ ক্যাম্পে বাইরে তালা দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেন। এতে একজন পুলিশ সদস্য অগ্নিদগ্ধ হন। মতিঝিল ও পল্টন এলাকায় স্থাপিত পুলিশের ৬৯ টি সিসি ক্যামেরা ভেঙে ফেলে হেফাজতের কর্মীরা। তারা ৩০ লাখ টাকাও লুট করে। বায়তুল মোকাররম মসজিদ এবং সোনার মার্কেট আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
শাপলা অভিযানের মৃত্যুর বিষয়ে গুজব ছড়ানো হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, অভিযানে যেসব অস্ত্র ও উপকরণ ব্যবহার হয়েছে তা মারণাস্ত্র নয়। এগুলো প্রাণঘাতী নয়। যে কোন ধরনের বিক্ষোভ দমনে সারা বিশ্বে এ ধরনের অস্ত্র ব্যবহার হয়ে থাকে।
ডিএমপি কমিশনার বলেন, ফটোশপের মাধ্যমে অনেক ছবি তৈরি করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে। ওই এলাকায় অভিযান শেষে হেফাজতের মঞ্চের কাছ থেকে চার জানের লাশ কাপড় ও পলিথিন দিয়ে মোড়ানো অবস্থায় পাওয়া যায়। ওই এলাকায় আরও তিন জনের লাশ পরে পাওয়া যায়। ওই দিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যসহ মোট ১১ জনের লাশ পাওয়া যায় বলে তিনি উল্লেখ করেন।
হেফাজতের বহু হতাহতের দাবির বিষয়ে তিনি বলেন, তারা এ তালিকা কোথায় পেলেন? তাদের কাছে যদি এ ধরনের কোন তালিকা থাকে তাহলে তা প্রকাশ করেন না কেন? তিনি বলেন, সাভারে যারা মারা গেছেন এবং নিখোঁজ তাদের স্বজনরা সেখানে ভিড় করছেন। এখানে হতাহতের ঘটনা ঘটলে তাদের স্বজনরাওতো এভাবে সন্ধান করতেন।

 

One Comment

  1. RAW প্রশিক্ষিত সরকারী দলের ১০০ কিলার হত্যাকান্ড চালাচ্ছে বাংলাদেশে!!!
    উদ্দেশ্য ২০১৩ সালের মধ্যে বাংলাদেশের শীর্ষ ইসলামপন্থী
    ও বিরুধি দলের নেতৃবৃন্দকে হত্যা করা ।
    খবর শ্রীলঙ্কার দ্যা গার্ডিয়ান এবং বাংলাদেশের ইটিভির ।
    লিংক সহ দিলাম। অবিশ্বাস্য কাহিনী পড়লে গা শিহরে উঠবে।
    জাতির জন্য খুবই উদ্বেগের খবর ।

    Guardian Report: http://www.srilankaguardian.org/2012/04/bengal-tigers-in-r-cage.html
    ETV REPORT: https://www.facebook.com/video/video.php?v=443834835710498&saved

    বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে বর্বর গণহত্যা
    Report of the Human Rights:
    http://www.humanrights.asia/news/ahrc-news/AHRC-STM-088-2013

    Bangladesh: A Massacre of Demonstrators
    Tuesday, 7 May 2013, 12:41 pm
    Article: Asian Human Rights Commission
    http://www.scoop.co.nz/stories/WO1305/S00164/bangladesh-a-massacre-of-demonstrators.htm

    Bangladesh
    Violence on the streets………..The Economist

    http://www.economist.com/blogs/banyan/2013/05/bangladesh?zid=306&ah=1b164dbd43b0cb27ba0d4c3b12a5e227

    ………দেশবাসীকে রুখে দাঁড়ানোর আহবান
    হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ- অফিশিয়াল সাইট
    এখন ডাক এসেছে প্রতিরোধের। অত’এব সবাই যার যা আছে তা নিয়ে রাজ পথা বের হওয়ার জন্য বলা হচ্ছে। তবেই আমাদের তিন হাজারাধিক শহীদদের রক্তের প্রতিশোধ নেওয়া হবে। যারা গতকাল রাত্রে আওয়ামী সন্ত্রাসী পুলিশ, বিজিবি, র্যাব কতৃক গণহত্যার শিকার হয়েছে। খবরটি ছড়িয়ে দিন সবার কাছে।
    https://www.facebook.com/hefazateislambd
    গণহত্যার ছবি দেখুনঃ
    http://www.banglarchokh.net/photo.php
    https://www.facebook.com/newbasherkella/photos_stream
    গণহত্যার ভিডিও দেখুনঃ
    https://www.facebook.com/media/set/?set=vb.428835640537739&type=2

Leave a Reply