ভারত দিবা-রাত্রির টেস্ট না খেলায় হতাশ চ্যাপেল

ভারত দিবা-রাত্রির টেস্ট না খেলায় হতাশ চ্যাপেল

বছরের শেষ দিকে অস্ট্রেলিয়া সফরে ভারতীয় ক্রিকেট দল দিবা-রাত্রির টেস্ট না খেলায় হতাশ ইয়ান চ্যাপেল। ক্রিকেটের সার্থ বাদ দিয়ে যে কোন মূল্যে জয়ী হওয়ার মানসিকতা সম্পন্ন ভারত দিবা-রাত্রির টেস্ট খেলতে অস্বীকার করায় হতাশা ব্যক্ত করেছেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক চ্যাপেল।

ক্রিকইনফোর কলামে চ্যাপেল লিখেছেন, ‘ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের(বিসিসিআই) সিদ্ধান্ত অত্যন্ত হতাশার। দিবা-রাত্রির টেস্টের অনানুষ্ঠানিক হোম গ্রাউন্ড এডিলেড। তিন বছর যাবত এখানে গোলাপি বলের টেস্ট সফলভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এবং ভারতের উপস্থিতিতে এ সংস্করণ আরো শক্তিশালী হবে বলে ধারণা করা হচ্ছিল।’

তিনি লিখেছেন, ‘বিসিসিআই কি যুক্তি দেখিয়েছে সেটা কোন বিষয় নয়। অন্য কোন বোর্ডের চেয়ে ভারত যে দুর্বল অস্টেলিয়ার বিপক্ষে যে কোন মূল্যে সিরিজ জয় করতে চায় এটা মেনে নেয়া কঠিন।’

গত মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারির কারণে এক বছরের নিষিদ্ধ হওয়া স্টিভ স্মিথ ও ডেভিড ওযার্নারকে ছাড়াই বছরের শেষ দিকে ভারতের বিপক্ষে হোম সিরিজ খেলতে হবে অস্ট্রেলিয়াকে। সে ক্ষেত্রে স্বাগতিক মিডল অর্ডার থাকবে অনেকটাই দুর্বল। ইয়ান চ্যাপেল মনে করছেন খেলাটির সঙ্গে সংশ্লিস্ট সকলেই টেস্ট ক্রিকেটকে বাঁচিয়ে রাখার কথা বলেন কিন্ত কার্য ক্ষেত্রে তেমনটা দেখা যাচ্ছে না।

তিনি বলেন, ‘খেলাটির বৃহত্তর স্বার্থে এগিয়ে আসতে আমি কাউকেই দেখছি না। বর্তমানে টি-২০ ক্রিকেটের বন্যায় টেস্ট ক্রিকেটকে বাঁচিয়ে রাখতে হলে কর্মকর্তাদের এগিয়ে আসতে হবে।’

দর্শকদের স্বার্থও বিবেচনায় নিতে হবে মনে করছেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘দিবা-রাত্রির টেস্ট দর্শকদের জন্যও সময় বিচেনায় আদর্শের। কেননা তারা এ সময়ে মাঠে কিংবা টেলিভিশনে খেলা দেখার সুযোগ পায়।’

তিনি আরো বলেন, ‘কন্ডিশনে নাটকীয় পরিবর্তনের জন্য দিবা-রাত্রির টেস্টে বিশেষ করে দল নির্বাচন ও ব্যাটিং অর্ডারে। ভিণœধর্মী পরিকল্পনাও নিতে হতে পারে। গোলাপি বলের ম্যাচে বোলারদের জন্যও বড় সুযোগ থাকে। এছাড়া চ্যালেঞ্জিং বিষয় থাকে অধিনায়কের জন্যও। একই সাথে দু’টি পাওয়া ক্রিকেটের জন্যই ভাল।’

Leave a Reply