মুক্তিযোদ্ধা কোটা কিছুটা কমতে পারে: মন্ত্রী

মুক্তিযোদ্ধা কোটা কিছুটা কমতে পারে: মন্ত্রী

মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা যেন সম্মানজনক পদে চাকরি পায় তা নিয়ে সরকার ভাবছে বলে জানালেন মুক্তিযোদ্ধা বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। আজ শনিবার দুপুরে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলা অডিটরিয়ামে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি একথা বলেন।

মোজাম্মেল হক বলেন, বর্তমান সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী। নিজেদের জীবন বাজি রেখে মুক্তিযোদ্ধারা বাংলাদেশকে উপহার দিয়েছেন। তাদের ও তাদের সন্তানের সরকার মূল্যায়ন করতে চায়।

তিনি বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান। কোটা পদ্ধতির মাধ্যমে তাদের সন্তানদের চাকরি পাওয়ার নিশ্চয়তা ছিল। কিন্তু কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের দাবির প্রেক্ষিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা কিছুটা কমতে পারে।

মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, হতে পরে প্রথম দিকে কোটা সংস্কার আন্দোলনের উদ্দেশ্য সৎ ছিল কিন্তু পরে এটা উদ্দেশ্যমূলক হয়ে যায়। এই আন্দোলনের মাধ্যমে বিএনপি রাজপথে আসার একটা হীন প্রচেষ্টা চালিয়েছিল।

তিনি বলেন, কোটা সংস্কার আন্দোলন নিয়ে যে তথ্য প্রকাশ পেয়েছে, তাতে অন্যদের মদদ থাকার সুস্পষ্ট প্রমাণ আছে। দেশ থেকে বিতাড়িত তারেক জিয়া তাদেরকে উৎসাহিত করেছে। এই আন্দোলনকে কীভাবে খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনে পরিণত করা যায়, সেই চেষ্টাও করা হয়েছে।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা রশিদুল আলম, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সদর উদ্দিন খান, সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী, কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম, ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল মারুফ প্রমুখ।

Leave a Reply