চলতি বছরেই কারা ও সংশোধনমূলক সেবা আইন প্রণীত হতে পারে : আনিসুল

চলতি বছরেই কারা ও সংশোধনমূলক সেবা আইন প্রণীত হতে পারে : আনিসুল

আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, সরকার একটি নতুন আইন ‘প্রিজনস অ্যান্ড কারেকশনাল সার্ভিসেস অ্যাক্ট’ ২০১৮ সালেই প্রণয়নের পরিকল্পনা করছে।
তিনি বলেন, ‘এই আইন কারাগারে বন্দীদের পুনর্বাসনের মূল কাজ করবে। এজন্য আমাদের কর্মকর্তাদের সক্ষমতা তৈরিতে নতুন ও উদ্ভাবনী সহযোগিতা প্রয়োজন। তবে এজন্য বাইরের সহযোগিদেরও অংশীদারিত্ব কাজে লাগাতে হবে।’
বুধবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়, কারা অধিদপ্তর এবং জার্মান ডেভলপমেন্ট কর্পোরেশনের (জিআইজেড) যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত প্লানিং ওয়ার্কশপ অব রুল অব ল প্রোগ্রামে আইনমন্ত্রী একথা বলেন। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।
আনিসুল হক বলেন, আমাদের কারাগারগুলোতে বিচার না হওয়া বন্দীদের উচ্চহার কমাতে, সেই সাথে আনুষ্ঠানিক বিচার পদ্ধতি দ্রুততর করতে এবং ছোটখাটো মামলাগুলো অব্যাহতভাবে অনানুষ্ঠানিক বিচার পদ্ধতিতে পাঠানো প্রয়োজন। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি, পর্যাপ্ত বিকল্প পথ ছাড়া আমাদের আদালত ও কারাগারগুলোতে ছোট ছোট মামলার স্তুপ অব্যাহত থাকবে। আমাদের নীতি নির্ধারণে এডিআরকে আরো শক্তিশালী করার জন্য আমাদের চিন্তা-ভাবনার প্রয়োজন রয়েছে।’
আইন সহায়তা বৃদ্ধি এবং তা জনগণের কাছাকাছি নিয়ে যাওয়া তার জন্য অগ্রাধিকার উল্লেখ করে আনিসুল হক বলেন, ন্যাশনাল লিগ্যাল এইড সার্ভিসেস অর্গানাইজেশন (এনএলএএসও) সর্বোচ্চ সুবিধা প্রদানে আইন সহায়তা দেয়া এবং একে অন্যের কাছ থেকে শেখার যে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে তা একটি ভালো উদ্যোগ।
আইনমন্ত্রী বলেন, ‘সমগ্র বিচার প্রক্রিয়ায় প্রযুক্তি সহায়তা করছে এবং তা কয়েক মাসের মধ্যেই সহজলভ্য হয়ে উঠবে। এর মাধ্যমে দেশব্যাপী বিচার বিভাগের নিরীক্ষণে কেমন ফলাফল আসবে তার জন্য আমরা অপেক্ষা করছি এবং ওই নিরীক্ষার ফল আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই পাওয়া যাবে। আর ওই নিরীক্ষার ফলের মাধ্যমে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর সঙ্গে কাজ করে আমরা এসডিজি ১৬-এর অগ্রাধিকার প্রতিবেদন শক্তিশালী করব।’
হেড অব রুল অব প্রোগ্রাম প্রমিতা সেনগুপ্ত কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য দেন। এতে অন্যান্যের মধ্যে ইন্সপেক্টর জেনারেল অব প্রিজন্স ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন, আইন ও বিচার বিভাগের সচিব এসএসএসএম জহিরুল হক এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিরাপত্তা ও সেবা বিভাগের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী বক্তব্য রাখেন।
সংশ্লিষ্ট বিষয়ে নিবন্ধ উপস্থাপন করেন জিআইজি সিনিয়র এডভাইজার আরলেট স্টোজানোভিক, আইন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (মতামত) উম্মে কুলসুম এবং নিরাপত্তা ও সেবা বিভাগের উপ-প্রধান মিজানুর রহমান।

Leave a Reply