ইন্দোনেশিয়ার সঙ্গে দুই চুক্তি, তিন সমঝোতা স্মারক সই

ইন্দোনেশিয়ার সঙ্গে দুই চুক্তি, তিন সমঝোতা স্মারক সই

ইন্দোনেশিয়ার সঙ্গে বিভিন্ন বিষয়ে বাংলাদেশের দুটি চুক্তি ও তিনটি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। রোববার সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সফররত ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে এসব চুক্তি ও সমঝোতা স্বাক্ষরিত হয়।

দুই দেশের মধ্যে অগ্রাধিকার বাণিজ্য সুবিধা সংক্রান্ত চুক্তি, দুই দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মধ্যে নিয়মিত বৈঠক আয়োজনে সমঝোতা, মৎস্য সম্পদ আহরণ সংক্রান্ত বিষয়ে যৌথ সম্মতিপত্র, তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের (এলএনজি) টার্মিনালে অবকাঠামো উন্নয়ন ও এ সংক্রান্ত বিষয়ে আরও দু’টি সমঝোতা স্মারক সই হয়।

বাংলাদেশ-ইন্দোনেশিয়ার মধ্যে বিশেষ বাণিজ্য চুক্তিতে বাংলাদেশের পক্ষে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ও ইন্দোনেশিয়ার পক্ষে দেশটির বাণিজ্যমন্ত্রী ইনগ্রেটিয়াসটো লুকিতা স্বাক্ষর করেন।

বাংলাদেশ-ইন্দোনেশিয়ার দ্বিপাক্ষীক সম্পর্কের বিষয়ে কূটনীতিক আলোচনার জন্য একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। এতে বাংলাদেশের পক্ষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ও ইন্দোনেশিয়ার পক্ষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেতনো মারসুদি স্বাক্ষর করেন।

মৎসখাতে সহযোগিতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। বাংলাদেশের পক্ষে মৎস ও প্রাণী সম্পদমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ ও ইন্দোনেশিয়ার পক্ষে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেতনো মারসুদি চুক্তিটিতে স্বাক্ষর করেন।

এছাড়া বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে সহযোগিতার বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। এতে বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. খালেদ মাহমুদ ও ইন্দোনেশিয়ার নিউ অ্যান্ড রিনিউঅ্যাবল এনার্জির ভাইস প্রেসিডেন্ট গ্রিনাদজার সোফিয়ান স্বাক্ষর করেন। এছাড়া এনএলজি আমদানি, রফতানি বিষয়ক পূর্ব স্বাক্ষরিত সমঝোতা স্মারকের আদান-প্রদান হয় দুই দেশের মাঝে।

এর আগে আজ (রোববার) সকালে সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধ ও ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে যান উইদোদো। সেখান থেকেই সকাল ৯টা ৪৯ মিনিটে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পৌঁছান তিনি। এ সময় জোকো উইদোদোকে স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তাদের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

তিনদিনের রাষ্ট্রীয় সফরে গতকাল শনিবার (২৭ জানুয়ারি) ঢাকায় আসেন জোকো। সফর সূচি অনুযায়ী, আজ (রোববার) কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শনে যাবেন তিনি।

Leave a Reply