পঞ্চম দিনে গড়ালো দরপতন

পঞ্চম দিনে গড়ালো দরপতন

দরপতনের বৃত্ত থেকে বের হতে পারছে না দেশের শেয়ারবাজার। বুধবার প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) মূল্য সূচকের পতন হয়েছে। এ নিয়ে উভয় বাজারে টানা পাঁচ কার্যদিবস দরপতন হলো।

মূল্য সূচকের পতনের পাশাপাশি উভয় বাজারে লেনদেন হওয়ার বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দাম কমেছে। সেই সঙ্গে ডিএসইতে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ। তবে সিএসইতে লেনদেন কিছুটা বেড়েছে।

টানা দরপতনের আগে শেয়ারবাজারে টানা উত্থান দেখা দেয়। ২৬ ডিসেম্বর থেকে ৩ জানুয়ারি পর্যন্ত টানা ছয় কার্যদিবস ঊর্ধ্বমুখী থাকে বাজার। এ ছয় কার্যদিবসে ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক বাড়ে ১৫৯ পয়েন্ট। আর শেষ পাঁচ কার্যদিবসের দরপতনে সূচকটি কমেছে ১৪৬ পয়েন্ট।

বুধবার ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ১০৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৮৯টির। আর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ৪২টির। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৪৩৯ কোটি ৩০ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় ৪৪৭ কোটি ১২ টাকা।

দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ২৬ পয়েন্ট কমে ৬ হাজার ১৭২ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অপর দুটি মূল্য সূচকের মধ্যে ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় ৯ পয়েন্ট কমে ২ হাজার ২৫৩ পয়েন্টে অবস্থা করছে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৩৮৭ পয়েন্টে।

টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে ইফাদ অটোসের শেয়ার। কোম্পানিটির ৩১ কোটি ১৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে থাকা আলিফ মেনু ফ্যাকচারিংয়ের ২১ কোটি ৪৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ১২ কোটি ৯৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- ন্যাশনাল টিউবস, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, বিডি থাই, জিল বাংলা সুগার মিল, আল আরাফা ইসলামী ব্যাংক, ড্রাগন সোয়েটার এবং কনফিডেন্স সিমেন্ট।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্য সূচক সিএসসিএক্স ৫০ পয়েন্ট কমে ১১ হাজার ৫৩৫ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৩১ কোটি ৪৭ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় ২০ কোটি ৭৩ লাখ টাকা। লেনদেন হওয়া ২৩৬টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৫৭টির শেয়ার দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৪৩টির। আর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৬টির।

Leave a Reply